জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্রে ‘লুমিয়ের থেকে হীরালাল’

বিশ্ব চলচ্চিত্রের ইতিহাস ও অগ্রগতি নিয়ে ‘ছায়াবীথি’ প্রকাশনী থেকে ২০২০ একুশে বইমেলায় প্রকাশিত হয়েছিলো লেখক মুহাম্মাদ আলতামিশ নাবিল রচিত গবেষণাগ্রন্থ ‘লুমিয়ের থেকে হীরালাল’।  ২০২০-২০২১ অর্থবছরে অনুদানপ্রাপ্ত বেসরকারী গ্রন্থাগারসমূহে বই সরবরাহের জন্য সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় অনুমোদিত গ্রন্থ তালিকায় স্থান পেয়েছে ‘লুমিয়ের থেকে হীরালাল’ বইটি। প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান ছায়াবীথি থেকে বইটি তাই জমা পড়ছে জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্রে।

এ প্রসঙ্গে আলতামিশ নাবিল বলেন, “সিনেমার পোকা কিন্তু চলচ্চিত্র মানেই যাদের কাছে হলিউড-বলিউড, সে সকল দর্শকদের উদ্দ্যেশে বইটি লেখা! বইটিতে আলোচনা করা হয়েছে সহজ ভাষায় সিনেমা শুরুর ইতিহাস, শুরুর দিকে বিশ্ব জুড়ে চলচ্চিত্র আন্দোলন বা ফিল্ম মুভমেন্ট যেগুলো চলচ্চিত্রের ভাষা বদলে দিয়েছে, ভারতবর্ষ এবং বাংলাদেশে সিনেমার শুরু, বাংলাদেশী নতুন যুগের কিছু সিনেমা এবং অন্যান্য কিছু বিশ্ব চলচ্চিত্র আলোচনা। বইটি সরকারীভাবে নির্বাচিত হয়ে দেশের গ্রন্থাগারসমূহে স্থান পাচ্ছে, এটি লেখক জীবনের অনেক বড় পাওয়া। বইটি পড়ে পাঠকদের কাছে এরপর সিনেমা শুধু বিনোদনের বিষয়বস্তু নয়, কিছুটা ভাবনারও খোরাক হবে এমনটাই আশা রাখছি!”

বিশ্বজুড়ে চলচ্চিত্রের প্রথম সফল প্রদর্শক নির্মাতা লুমিয়ের ভ্রাতৃদ্বয় এবং ভারতবর্ষের সিনেমা সত্যিকার যার হাত ধরে প্রথম এসেছে সেই হীরালাল সেনকে শ্রদ্ধার্ঘ্য জানিয়ে বইটির নামকরণ করা হয়েছে।

আলতামিশ নাবিল নিয়মিত লেখালেখি ও প্রামাণ্য চলচ্চিত্র নির্মাণের পাশাপাশি বর্তমানে কর্মরত আছেন ডিজিটাল সার্ভিস বিশেষজ্ঞ হিসেবে একটি বহুজাতিক কোম্পানিতে। এছাড়াও তিনি আন্তর্জাতিক সংগঠন জুনিয়র চেম্বার ইন্টারন্যাশনাল (জেসিআই) এর ঢাকা ওয়েষ্ট শাখার এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে দ্বায়িত্ব পালন করছেন। এটি তার প্রকাশিত দ্বিতীয় বই। এছাড়াও তিনি প্রকাশ করেছেন সত্যজিৎ রায়ের চলচ্চিত্রকর্মের উপর গবেষণাগ্রন্থ ‘মহারাজা তোমারে সেলাম’ এবং জহির রায়হানকে নিয়ে ‘লেট দেয়ার বি লাইট’।

লুমিয়ের থেকে হীরালাল বইটির প্রচ্ছদ করেছেন সাজ্জাদুল ইসলাম সায়েম। ছায়াবীথি প্রকাশনীর অফিস ছাড়াও বইটি সংগ্রহ করা যাবে যাবে জনপ্রিয় ই-কমার্স সাইট রকমারীডটকম সহ দেশের সকল প্রধান বইঘরগুলো থেকে।

লেখকের অনুমতি ছাড়া সাইটে ব্যবহৃত সকল প্রকার লেখা পুনঃপ্রকাশ বেআইনি। জরুরী যোগাযোগে ইমেইলঃ altamishnabil@gmail.com

আরো পড়ুন...